আবেদন করুন স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডির জন্য। টিকিট বুক করে প্রতি মাসে ইনকাম করুন ভালো পরিমাণ টাকা।

ভারতের সাধারণ জনগণ তাদের যাতায়াতের মূল মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে ভারতীয় রেলকে। যার কারণে প্রত্যেক দিন বহু সংখ্যক মানুষ ভারতীয় রেলের মাধ্যমে যাতায়াত করে থাকেন। আর তাতেই ক্রমাগত হারে ট্রেনের টিকিটের চাহিদাও বাড়ছে। যার জেরে ক্রমাগত হারে বাড়তে থাকা টিকিটের চাহিদাকে মাথায় রেখে ভারতীয় রেলের তরফে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট নিয়োগ করার এক বিশেষ উদ্যোগ কার্যকর করা হয়েছে। আর বর্তমানে আপনিও চাইলেই স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট হয়ে প্রতিমাসে কয়েক হাজার টাকা পর্যন্ত উপার্জন করে নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে সবথেকে আকর্ষণীয় বিষয়টি হল শুধুমাত্র মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই ভারতীয় নাগরিকরা স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট পদের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন।

কারা এই পদের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন?

ভারতীয় রেলের তরফে জারি করা তথ্য অনুসারে, স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট পদে আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনকারী ব্যক্তিকে ভারতীয় নাগরিক হতে হবে। এর পাশাপশি রেলের তরফে প্রকাশিত তথ্য আরও জানানো হয়েছে যে, যে সমস্ত ব্যক্তিরা ভারত সরকারের তরফে স্বীকৃত যেকোনো বোর্ডের অধীনস্থ যেকোনো বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা বা দশম শ্রেণীর ফাইনাল পরীক্ষার উত্তীর্ণ হয়েছেন, তারাই এই পদের আওতায় আবেদন জানাতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আবেদনকারীর বয়স ১৮ বছর বা তার তুলনায় বেশি হতে হবে।

স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট পদের জন্য কিভাবে আবেদন জানাবেন?

স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট পদের জন্য আপনাকে প্রথমে ভারতীয় রেলের তরফে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্টের আইডি গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডি নেওয়ার জন্য আপনাকে যে যে ধাপগুলি অনুসরণ করতে হবে তা হলো:

১. স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট পদের জন্য এজেন্ট আইডি কেনার ক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে PayNearby অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

২. এরপর অ্যাপটিকে ইন্সটল করে ওপেন করার পর আপনাকে আপনার মোবাইল নম্বর, ইমেইল অ্যাড্রেস, প্যান কার্ড নম্বর সহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য তথ্যগুলির মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে হবে।

৩. এরপর এই অ্যাপটির হোম পেজের নিচের দিকে থাকা RAIL BOOKING অপশনে ক্লিক করুন। পরবর্তীতে আপনার সামনে আসা পেজটিতে যে ফ্ল্যাশ মেসেজ আসবে তাতে থাকা OK অপশনে ক্লিক করুন এবং পরবর্তী পেজের CREATE ID অপশনে ক্লিক করুন। এক্ষেত্রে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডি নেওয়ার জন্য আপনাকে ২০০০ টাকা পেমেন্ট করতে হবে। সুতরাং আপনার অ্যাপ ওয়ালেটে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্যালেন্স না থাকে তবে প্রথমেই ২ হাজার টাকার ব্যালেন্স অ্যাড করে নিতে হবে।

৪. পর্যাপ্ত ব্যালেন্স অ্যাড করা হলে আপনার সামনে আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ফর্মটি চলে আসবে। এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার নাম, ঠিকানা, পিন কোড, প্যান নম্বর, আধার নম্বর সহ ফর্মে উল্লিখিত সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে উল্লেখ করতে হবে। এরপর উক্ত অ্যাপে উল্লিখিত সমস্ত ডকুমেন্টস আপনাকে সঠিকভাবে আপলোড করতে হবে। এরপর Next অপশনে ক্লিক করুন।

৫. এরপর পরবর্তী পেজে থাকা PAY NOW অপশনে ক্লিক করুন এবং ২০০০ টাকা পেমেন্ট করার মাধ্যমে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট -এর এজেন্ট আইডি পাওয়ার জন্য আবেদনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করুন।

৬. আবেদনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হলে আপনার কাছে একটি ইমেইল আসবে যাতে একটি OTP এবং একটি লিংক দেওয়া থাকবে। ওই লিংকটিতে ক্লিক করুন এবং আপনার সামনে যে পেজটি আসবে তাতে সঠিক স্থানে OTP টি লিখে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডিটিকে অ্যাক্টিভেট করুন।

৭. পরবর্তীতে আপনার সামনে পুনরায় একটি নতুন পেজ আসবে যাতে আপনাকে আপনার আধার নম্বর প্রদান করে KYC সম্পন্ন করতে হবে। এরপর আপনি আপনার স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডির মাধ্যমে আনলিমিটেড টিকিট বুকিং করতে পারবেন।

আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি:-

১. আবেদনকারীর প্যান কার্ড।
২. আবেদনকারী ব্যক্তির আধার কার্ড।
৩. দোকানের ঠিকানার প্রমাণপত্র।
৪. e-Aadhaar XML File
৫. Filled RSP form
৬. আবেদনকারীর ছবি।

আরও পড়ুন:- পোস্ট অফিসের পিপিএফ স্কিমে দৈনিক ৫০ টাকা বিনিয়োগ করে বছর শেষে পেয়ে যান ভালো পরিমাণ টাকা

অফলাইনের মাধ্যমে আবেদনের পদ্ধতি:-

শুধুমাত্র উপরোক্ত পদ্ধতির মাধ্যমে রেলের স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট হিসেবে আবেদন জানানো সম্ভব তা নয়। অনেক ক্ষেত্রেই রেলের তরফেও বিশেষ নির্দেশিকা প্রকাশের মাধ্যমে স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট হিসেবে যোগ্য ব্যক্তিদের নিয়োগ করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে রেলের তরফে যে নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়ে থাকে সেই নির্দেশিকা শেষ পৃষ্ঠায় থাকা ফর্মটি পূরণ করতে হয়। এর জন্য আপনাকে ফর্মটি ডাউনলোড করতে হবে এবং প্রিন্ট করে নিতে হবে। তারপর ওই ফর্মে আপনার নাম, আপনার পিতার নাম, আপনার জন্ম তারিখ, ইমেইল অ্যাড্রেস, ফোন নম্বর সহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে ফর্মে উল্লিখিত নথি অ্যাটাচ করে মুখবন্ধ খামে পুরে রেজিস্টার্ড পোস্ট কিংবা স্পিড পোস্টের মাধ্যমে রেলের তরফে নির্ধারিত ঠিকানায় পাঠিয়ে দিতে হবে।

তবে অফলাইনের মাধ্যমে আবেদনের ক্ষেত্রে রেলের তরফে যে নির্দিষ্ট স্টেশন নির্ধারণ করে দেওয়া হবে সেই স্টেশনগুলির জন্যই আপনি আবেদন জানাতে পারবেন। অর্থাৎ রেলের তরফে প্রকাশিত নির্দেশকায় যেসকল স্টেশনের নাম উল্লেখ করা থাকবে সেই সমস্ত স্টেশনগুলির মধ্যে আপনাকে যেকোনো একটি স্টেশন বেছে নিতে হবে। আবার অনেক ক্ষেত্রেই নির্ধারিত স্টেশনগুলির নিকটবর্তী এলাকায় বসবাসকারী ব্যক্তিদেরও নিয়োগ করা হয়ে থাকে। সুতরাং আপনি রেলের তরফে প্রকাশিত নির্দেশিকাটি ভালোভালো পড়ে নিয়ে তারপর তাতে থাকা ফর্মটি সঠিকভাবে পূরণের মাধ্যমেও আবেদন জানাতে পারবেন।

স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডির মাধ্যমে কতটাকা উপার্জন করা সম্ভব?

স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট আইডির মাধ্যমে আপনি আনলিমিটেড টিকিট বুকিং করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি প্রতিদিন কতগুলি টিকিট বুকিং করছেন তার উপর নির্ভর করে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পেয়ে যাবেন। বিভিন্ন রিপোর্টে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, একজন স্টেশন টিকিট বুকিং এজেন্ট টিকিট বুকিংয়ের মাধ্যমে প্রত্যেক মাসে ১৫০০০ টাকা থেকে শুরু করে ২০০০০ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করে থাকেন। সুতরাং আপনিও আপনার এজেন্ট আইডির মাধ্যমে প্রত্যেক মাসে অন্ততপক্ষে ১৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত উপার্জন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি প্রতি মাসে কত টাকা উপার্জন করছেন তা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করবে আপনি ওই মাসে কতগুলি টিকিট বুকিং করেছেন তার উপরে।

Leave a Comment