সেপ্টেম্বর মাসে রাজ্য জুড়ে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে, কি কি সুবিধা পাবেন জেনে নিন।

২০২১ -এর বিধানসভা নির্বাচনের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে রাজ্য সরকারের কার্যকরী প্রকল্পগুলিকে সমগ্র পশ্চিমবঙ্গ সাধারণ জনগণের দুয়ারে পৌঁছে দিতেই দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প কার্যকর করা হয়েছিল। আর ইতিমধ্যে সমগ্র পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ নাগরিকদের মধ্যে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প যথেষ্ট জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। রাজ্য সরকারের তরফে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, খুব শীঘ্রই রাজ্যজুড়ে পুনরায় দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ্যে আনায় কবে থেকে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে, এই ক্যাম্প থেকে কি কি সুবিধা পাওয়া যাবে তা নিয়ে রাজ্যের সাধারণ জনগণের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছে। যার কারণে আজকের এই পোস্টে আমরা আগামী দিনে কবে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে, দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প থেকে কি কি প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে তা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিয়ে হাজির হয়েছি।

কবে থেকে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে?

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের তরফ থেকে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ১ তারিখ অর্থাৎ ১লা সেপ্টেম্বর, ২০২৩ তারিখ থেকেই সমগ্র রাজ্যব্যাপী দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজিত হতে চলেছে। নবান্নের তরফে জারি করা নির্দেশিকা অনুসারে জানা গিয়েছে যে, সপ্তম পর্যায়ের এই দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পের মাধ্যমে ১লা সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখ থেকে শুরু করে ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখ পর্যন্ত রাজ্য সরকারের আওতাধীন প্রকল্পগুলির আওতায় আবেদন জানানো যাবে। অন্যদিকে ১৮ই সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখ থেকে শুরু করে ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখ পর্যন্ত আবেদনকারীদের পরিষেবা প্রদানের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে।

duare-sarkar-camp

দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প থেকে কোন কোন প্রকল্পের সুবিধা মিলবে?

নবান্নের তরফে জারি করা নির্দেশিকা অনুসারে জানা গিয়েছে যে, আগত সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজিত দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প থেকে সমগ্র রাজ্যের জনগণ ৩৫ টি প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে যাবেন। ষষ্ঠ পর্যায়ে যে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজন করা হয়েছিল তা থেকে মোট ৩৩ টি সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দারা, তবে এবারে আরও দুটি নতুন পরিষেবা যোগ করা হতে চলেছে, এমনটাই জানানো হয়েছে নবান্নের তরফে প্রকাশিত নতুন নির্দেশিকায়। প্রতিবারের মতোই দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পের মাধ্যমে রাজ্য সরকারের তরফে কার্যকরী কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, লক্ষ্মীর ভান্ডার, কৃষক বন্ধু, বিধবা ভাতা, ভবিষ্যৎ ক্রেডিট কার্ড, মেধাশ্রী, কিষাণ ক্রেডিট কার্ড, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড, শিক্ষাশ্রী, ঐক্যশ্রী, তপশিলি বন্ধু, কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী শংসাপত্র সহ নানাবিধ প্রকল্পের আওতায় আবেদন জানানো যাবে।

আরও পড়ুন:- ২ কোটি রেশন কার্ড বাতিল করলো রাজ্য সরকার। বিস্তারিত জেনে নিন।

তবে রাজ্য সরকারের তরফে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, আগত সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজিত দুয়ার সরকারের ক্যাম্পে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য বিশেষ শিবিরের আয়োজন করা হবে। এই শিবিরের মাধ্যমে পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম সহ নানাবিধ তথ্য সংগ্রহ করা হবে এবং পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আওতায় রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে। মূলত পরিযায়ী শ্রমিক এবং তাদের পরিবারকে বিভিন্ন প্রকল্পের আওতাধীন নানাবিধ সুবিধা প্রদানের জন্যই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে। রাজ্য সরকারের তরফে পরিযায়ী শ্রমিকদের উন্নয়নের খাতিরে বিভিন্ন প্রকার প্রকল্প কার্যকর করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলেও পরিযায়ী শ্রমিকদের পর্যাপ্ত তথ্যের অভাবে সেই সমস্ত সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়নি, আগামী দিনে এই সমস্ত প্রকল্প এবং পদক্ষেপ কার্যকরী করতে উদ্যোগী তৃণমূল সরকার আর তাতেই দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্য সংগ্রহ করতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার।

পরিযায়ী শ্রমিকদের সুবিধার্থে আরও জানানো হয়েছে যে, গোটা সেপ্টেম্বর মাস জুড়ে আয়োজিত দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে রবিবারে কোনো আবেদন গ্রহণ করা হবে না, এমনকি সেপ্টেম্বর মাসে যে সমস্ত সরকারি ছুটির দিন রয়েছে সেই সমস্ত দিনেও দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পের মাধ্যমে কোনোরূপ আবেদন গ্রহণ করা হবে না। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিগত বছরে সমগ্র পশ্চিমবঙ্গে ১ লক্ষ দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প আয়োজন করা হয়েছিল রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। শুধু তাই নয়, নাগরিকদের সুবিধার খাতিরে কার্যকর করা হয়েছিল হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরও (১৮০০৩৪৫১৮৭)। দুয়ারে সরকার সংক্রান্ত যেকোনো রকম অভিযোগ কিংবা যেকোনো সমস্যার সমাধান পাওয়া যেত এই হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের মাধ্যমে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে গৃহীত এই বিশেষ উদ্যোগ সমগ্র রাজ্যের সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বদের কাছে যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছে। আর এই প্রকল্পের মাধ্যমে আগামী দিনে রাজ্যের সাধারণ জনগণের কাছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে কার্যকরী সমস্ত সুবিধা পৌছে দেওয়া যাবে বলে মনে করছেন সমগ্র পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক মহলের কর্মকর্তারা।

Leave a Comment